গোলক ধাম মন্দির, পঞ্চগড় | Golak Dham Temple, Panchagarh

গোলক ধাম মন্দির

অবস্থান | Location

গোলকধাম মন্দিরটি বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলাধীন দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাংগা ইউনিয়নের শালডাংগা নামক গ্রামে এবং করতোয়া নদীর পশ্চিম তীরে অবস্থিত। 

জিও কো-অর্ডিনেট | GeoCoordinate

পঞ্চগড় জেলার গোলক ধাম মন্দিরটির জিও কো-অর্ডিনেট (অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ) হল 26°11’59.8″ N  88°41’26.9″ E (26.199950, 88.690799)।

স্থাপত‌্যিক বিবরণ | Architectural Description

গোলক ধাম মন্দিরটি প্রায় ১ মিটার উচুঁ প্লাটফরমের [Platform] উপরে অষ্টাভূজাকার [Octagonal] পরিকল্পনায় নির্মাণ করা হয়েছে। ৩টি ধাপবিশিষ্ট উঁচু এ প্লাটফরমটি বৃত্তাকার ভূমি পরিকল্পনায় নির্মিত। মন্দিরটিতে আরোহণের জন্য মন্দিরের সামনে ৭টি ধাপবিশিষ্ট সিঁড়ি রয়েছে। অষ্টভূজাকার এ মন্দিরের ৮টি দেয়ালে ৮টি প্রবেশপথ রয়েছে। মন্দিরটির সামনের দেয়ালের প্রবেশপথগুলোতে গোথিক/ল্যানসেট খিলানের [Gothic/Lancet Arch] প্রতিফলন দেখা যায়।  মন্দিরের বিদ্যমান স্তম্ভসমূহ [Coloum] একান্থাস [Acanthus] পত্রপল্লববিশিষ্ট করিন্থিয়ান [Corinthian] কারুকার্য দিয়ে সজ্জিত রয়েছে। মন্দিরের অভ্যন্তরের প্রবেশপথগুলোতে অর্ধ বৃত্তাকার খিলানের [Semi Circular Arch] প্রতিফলন দেখা যায়। মন্দিরের অভ্যন্তরের ছাদে লোহা ও কাঠের বর্গা রয়েছে। পলস্তারা বা আস্তরবিশিষ্ট [Stucco] এ মন্দিরটি ছাদের চারদিক বেষ্টিত প্রাচীর [Parapet] রয়েছে। এ প্রাচীরটির সামনের অংশে ২টি হাতির মস্তক ও শুঁড় দিয়ে ঘেরা ১টি লিপিফলক রয়েছে। মন্দিরটির ছাদের উপরে মাঝ বরাবর ১টি রত্ন (jewel/spire) এবং চারকোণে ৪টি রত্ন (jewel/spire) রয়েছে। ছাদের উপরের রত্নগুলো অবস্থান দেখে এ মন্দিরটিকে পঞ্চরত্ন মন্দির বলা যেতে পারে। রত্নগুলোর (apex/spire) উপরে কৃষ্ণের বাঁশির স্মারক ও ত্রিশূলসহ অলংকৃত শীর্ষচূড়া (finial) রয়েছে। মন্দিরের দেয়াল জুড়ে ফুল ও লতাপাতার অলংকরণ রয়েছে। মন্দিরটির প্রবেশপথের সামনে উভয় পাশে ১টি করে মোট ২টি তুলসী মঞ্চ রয়েছে। গোলক ধাম মন্দিরটিতে বাংলা ও গ্রীক উভয়ের সম্মিলিত স্থাপত‌্যশৈলী ও নির্মাণকৌশল যথেষ্ট প্রতিফলিত হয়েছে।

ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট | Historical Background

গোলক ধাম মন্দিরের দেয়ালে ১টি উৎকীর্ণ লিপি ফলক রয়েছে। লিপি ফলকের ভাষ‌্য অনুযায়ী ধারনা করা হয় যে, ব্রিটিশ শাসন আমলে খ্রিস্টীয় ১৯ শতকে (১৮৪৬ খ্রিস্টাব্দে) পঞ্চগড়ের এ গোলক ধাম মন্দিরটি নির্মাণ করা হয়। মূলত এ মন্দিরটি গোলক কৃষ্ণ গোস্বামীর স্মৃতির উদ্দেশ্যে নির্মিত এবং তাঁর নামে মন্দিরটির নামকরণ করা হয়। মন্দিরের দেয়ালে বিদ‌্যমান বাংলা ভাষার লিপিফলকটিতে, ‘‘গোলক ধাম। স্বর্গীয় গোলক কৃষ্ণ গোস্বামী প্রভু পাদস্য স্মৃতি মন্দির। ১৮৪৬’’ উৎকীর্ণ রয়েছে।’ মন্দিরটিতে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন শ্রীকৃষ্ণের ‍পুজা অর্চনা করে থাকে। বর্তমানে সংরক্ষিত জাতীয় পুরাকীর্তি হিসেবে গোলক ধাম মন্দিরটি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে রয়েছে।

লেখক: মো. শাহীন আলম  

Add a Comment

Your email address will not be published.