নীলসাগর: যার অপর নাম বিন্নাদীঘি | Nilsagor

নীলসাগর

 অবস্থান | Location

নীলসাগর নীলফামারী জেলাধীন সদর উপজেলার গোড়গ্রাম ইউনিয়নের ধোপাডাঙ্গা গ্রামে অবস্থিত। এটি স্থানীয়ভাবে বিরাট দীঘি বা বিন্নাদীঘি নামেও পরিচিত।

 জিও কো-অর্ডিনেট | GeoCoordinate

নীলফামারী জেলায় অবস্থিত নীলসাগরের জিও কো-অর্ডিনেট (অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ) হল 26°00’11.7″N 88°45’18.4″E (26.003259, 88.755101)

 বিবরণ | Description

সমুদ্র না হলেও নয়ন জুড়ানো বিপুল নীল জলরাশির কারণে সকলে দীঘিটিকে নীলসাগর নামেই চিনে। আয়তাকারবিশিষ্ট দীঘিটির পাড় বাদে উত্তরে-দক্ষিণে দৈর্ঘ্য ৪৬০ মিটার এবং প্রস্থ ৩০০ মিটার। দীঘিটির উচুঁ পাড়গুলো ৬০ মিটার চওড়া। পাড় জুড়ে রয়েছে অসংখ্য বৃক্ষরাজি। দীঘিটির প্রতি পাড়ে ১টি করে মোট ৪টি প্রাচীন শানবাঁধানো ঘাট রয়েছে। স্থানীয়দের মতে, দীঘিটির চার পাড়ের কাকচরে ইট বাঁধানো রয়েছে।   

 ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট | Historical Background

বিশাল আয়তনের নীলসাগর সম্পর্কে জনশ্রুতি রয়েছে, আনুমানিক ৫ হাজার ২ শত বছর আগে এ দীঘিটি  খনন করা হয়। আরও জনশ্রুতি রয়েছে যে, মহাভারতে  উল্লেখিত ‘বিরাট রাজা’ কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে নিহত হন। তখন তাকে এ দীঘিটির পাড়ে সমাহিত করা হয়।

বিরাট রাজার দীঘিটি কালের বিবর্তনে ‘বিরনা দীঘি’ নামে পরিচিতি পায়। আবার সি.এস. (CS) জরিপকালে ‘বিন্নাদীঘি’ নামে পরিচিত হয়। ১৯৭৯ – ১৯৮০ সালে দীঘিটির সংস্কার ও উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করা হয়। ৮ মার্চ ১৯৮০ সালে সংস্কার ও উন্নয়ন কাজ উদ্বোধনকালে তৎকালীন রংপুরের জেলা প্রশাসক জনাব মাহে আলম এবং নীলফামারীর মহকুমা প্রশাসক জনাব আব্দুল জব্বার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে দীঘিটির নামকরণ করেন ‘নীলসাগর’। বর্তমানে নীলসাগর বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন ও প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান। 

লেখক: মো: শাহীন আলম

Add a Comment

Your email address will not be published.