বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য: বাট্রিন্ট, আলবেনিয়া

বাট্রিন্ট

 অবস্থান | Location

বাট্রিন্ট (Butrint) হল একটি বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, যা দক্ষিণ আলবেনিয়াতে অবস্থিত। আলবেনিয়ার আধুনিক শহর সারান্দা (Saranda) থেকে আনুমানিক ২০ কিলোমিটার দূরে ভূ-মধ্যসাগরের তীরবর্তী স্থানে প্রকৃতির সংমিশ্রণের এ বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসমূহ দেখা যায়। 

 জিও কো-অর্ডিনেট | GeoCoordinate

আলবেনিয়ার বাট্রিন্ট (বুথ্রোটাম) নামক বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য-এর জিও কো-অর্ডিনেট (অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ) হল 39°44’44.1″N 20°01’13.6″E (39.745582, 20.020446)

স্থাপত‌্যিক বিবরণ | Architectural Description

পশ্চাদভূমিসহ সাথে বাট্রিন্ট একটি ব্যতিক্রমী সাংস্কৃতিক ভূদৃশ্য গঠন করে, যা বহু শতাব্দী ধরে জৈবিকভাবে বিকশিত হয়েছে। ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের এটি একটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন, যা প্রকৃতির খুব বিরল একটি সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে। এ ঐতিহ্যবাহী স্থানটি ভূমধ্যসাগরীয় ইতিহাসের একটি ক্ষুদ্র জগত। এটির কেন্দ্রে প্রাগৈতিহাসিক স্থানসমূহ চিহ্নিত করা হয়েছে, এখানে রয়েছে বাট্রিন্ট লেক এবং ভিভারি (Vivari) চ্যানেলের জল দ্বারা বেষ্টিত ছোট্ট পাহাড়, পাশাপাশি আরও রয়েছে এর বিস্তৃত অঞ্চল। বাট্রিন্ট গ্রিক সংস্কৃতি দ্বারা প্রভাবিত ছিল, যা একটি “পলিস” (polis) এর সাংস্কৃতিক উপাদান বহন করে এবং এখানে চাওনিয়ান (Chaonian) উপজাতিরাও বসতি স্থাপন করে। বাট্রিন্ট একটি রোমান উপনিবেশে পরিণত হয় এবং পুনরুদ্ধারকৃত জলাভূমিতে ব্যাপকভাবে বিস্তৃত হয়। প্রাথমিকভাবে দক্ষিণে ভিভারি চ্যানেল জুড়ে বিস্তৃতি ঘটে, যেখানে একটি কৃত্রিম জল প্রণালী নির্মিত হয়েছিল। বাট্রিন্ট একটি এপিস্কোপাল (Episcopal) কেন্দ্রে পরিণত হয়। এটি সুদৃঢ় ছিল এবং বাস্তবিকভাবে প্রাচীন খ্রিস্টান কাঠামো নির্মিত হয়েছিল। 

দুর্গসমূহ গ্রীক উপনিবেশের সময় থেকে মধ্যযুগ পর্যন্ত তাদের নির্মাণের বিভিন্ন পর্যায়ে সাক্ষ্য বহন করে। সবচেয়ে আকর্ষণীয় প্রাচীন গ্রীক স্মৃতিস্তম্ভ হল থিয়েটার, যা মোটামুটি ভালভাবে সংরক্ষিত। প্যালিও-খ্রিস্টীয় যুগের প্রধান ধ্বংসাবশেষ হল ব্যাপটিস্টারি, যা খ্রিস্টধর্মের সাংস্কৃতিক চাহিদার সাথে খাপ খাইয়ে একটি প্রাচীন রোমান স্মৃতিস্তম্ভ। এর মেঝেতে সুন্দর মোজাইক ডেকোরেশন রয়েছে। এখানে নবম শতাব্দীতে প্যালিও-খ্রিস্টান বেসিলিকা পুনর্নির্মাণ করা হয়েছিল। এর ধ্বংসাবশেষের কাঠামোর বিশ্লেষণের জন্য যথেষ্ট পরিমাণে সংরক্ষিত আছে {একটি ট্রান্সসেপ্ট (transept)সহ তিনটি নেভ (nave) এবং বাহিরের বহুভুজ এপস (apse)}।

ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট | Historical Background

বাট্রিন্ট হল প্রাগৈতিহাসিক কালের একটি আবাসন, যেখানে গ্রিক উপনিবেশ,  রোমান শহর এবং বিশপ্রিক গড়ে উঠে ছিল। বাইজেন্টাইন প্রশাসনের অধীনে ছিল এর সমৃদ্ধির সময়, তারপর ভেনিসীয়দের দ্বারা স্বল্প সময়ের জন্য দখল,  এবং এ অঞ্চলে জলাভূমি তৈরি হওয়ার পরে মধ্যযুগের শেষের দিকে শহরটি পরিত্যক্ত হয়। বর্তমানে এ প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানটি শহরের উন্নয়নের প্রতিটি সময়ের প্রতিনিধিত্বকারী ধ্বংসাবশেষের ভাণ্ডার। 

বাট্রিন্ট ঐতিহ্যবাহী স্থানটি খিস্টপূর্ব ৫০ হাজার থেকে  ১৯ শতাব্দী পর্যন্ত মধ্যে গড়ে উঠে। ৮০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ থেকে রোমানদের আগমনের পূর্ব পর্যন্ত, বাট্রিন্ট গ্রিক সংস্কৃতি দ্বারা প্রভাবিত ছিল। ৪৪ খ্রিস্টপূর্বাব্দে বাট্রিন্ট একটি রোমান উপনিবেশে পরিণত হয় এবং পুনরুদ্ধারকৃত জলাভূমিতে ব্যাপকভাবে বিস্তৃত হয়। খ্রিস্টীয় ৫ম শতাব্দীতে বাট্রিন্ট একটি এপিস্কোপাল (Episcopal) কেন্দ্রে পরিণত হয়। পরিত্যক্ত থাকার পরে ৯ম শতাব্দীতে বাট্রিন্ট বাইজেন্টাইন নিয়ন্ত্রণে পুনর্গঠিত হয়েছিল। ১৪ শতাব্দীতে বাট্রিন্ট এবং তৎসংলগ্ল অঞ্চল এঞ্জভিনদের (Angevin) এবং তারপরে ভেনিসীয়দের নিয়ন্ত্রণে আসে। এপিরাস (Epirus) শাসকদের এবং তারপরে উসমানীয় শাসক বা অটোমানদের দ্বারা বেশ কয়েকটি আক্রমণ বাট্রিন্টের প্রতিরক্ষামূলক কাজকে শক্তিশালী এবং সম্প্রসারণের দিকে পরিচালিত করে। ১৯ শতকের শুরুতে ভিভারি চ্যানেলের মুখে বাট্রিন্টের প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থায় একটি নতুন দুর্গ নির্মাণ করা হয়েছিল। এটি আলবেনিয়ার উসমানীয় শাসক আলী পাশা নির্মাণ করেছিলেন, যিনি এটির চূড়ান্তভাবে পরিত্যক্ত না হওয়া পর্যন্ত বাট্রিন্ট এবং তৎসংলগ্ন এলাকা নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন।

বিশ্ব ঐতিহ্য নির্বাচনের মানদণ্ডের ৩য় এর ভিত্তিতে অসামান্য সার্বজনীন মান (outstanding universal value) পূরণ করায় এ ঐতিহ্যবাহী স্থানটিকে ১৯৯২ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ঘোষণা করা হয়। ১৯৯৯ সালে এটির আয়তন আরও বৃদ্ধি করা হয়। ২০০৭ সালে এটির সীমানার কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়। 

অসামান্য সার্বজনীন মান | Outstanding Universal Value

বিশ্ব ঐতিহ্য নির্বাচনের মানদণ্ড (the criteria for selection) ৩য় (iii) এর ভিত্তিতে অসামান্য সার্বজনীন মান (outstanding universal value) পূরণ করায় ইউনেস্কো কর্তৃক বাট্রিন্ট নামক এ প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানটিকে বিশ্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের তালিকাভূক্ত করা হয়। নির্বাচনের মানদণ্ড-এর ভিত্তিতে এ ঐতিহ্য স্থানটি যে  অসামান্য সার্বজনীন মান (outstanding universal value) পূরণ করে, তা নিম্নে তুলে ধরা হল –

মানদণ্ড (criteria) ৩য় (iii) : বাট্রিন্টের প্রাকৃতিক পরিবেশের বিবর্তন প্রক্রিয়ায় মধ্যযুগের শেষের দিকে শহরটি পরিত্যাগের দিকে পরিচালিত করেছিল, যার ফলস্বরূপ এ প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানটি আধুনিক আলবেনিয়ার ভূখণ্ডে প্রাচীন ও মধ্যযুগীয় সভ্যতার মূল্যবান প্রমাণ বহন করে।

লেখক: মো. শাহীন আলম  

Reference: Butrint
image source: World Heritage Centre


 

Add a Comment

Your email address will not be published.